ফাতওয়া  নং  ২৩৯

কীভাবে অন্য দেশে হিজরত করে জিহাদি কাফেলায় শরিক হতে পারি?

কীভাবে অন্য দেশে হিজরত করে জিহাদি কাফেলায় শরিক হতে পারি?, fatwaa

পিডিএফ ডাউনলোড করুন

ওয়ার্ড ডাউনলোড করুন

কীভাবে অন্য দেশে হিজরত করে জিহাদি কাফেলায় শরিক হতে পারি?

প্রশ্নঃ আমি আল্লাহর জমিনে আল্লাহর দ্বীন কায়েমের উদ্দেশ্যে নিজের জান ও মাল দিয়ে জিহাদ করে শহীদ হতে আগ্রহী। কিন্তু বাংলাদেশে যেহেতু এখনও জিহাদ শুরু হয়নি, তাই এ উদ্দেশ্যে অন্য দেশে হিজরত করতে চাই। এখন আমার জানার বিষয় হল, আমি কীভাবে অন্য দেশে হিজরত করে জিহাদি কাফেলায় শরিক হতে পারি, তা জানালে অনেক উপকৃত হতাম।

প্রশ্নকারী- মাহবুব

 উত্তরঃ

আল্লাহ আপনার জিহাদে শরিক হওয়ার এবং শাহাদাহ লাভের তামান্না কবুল করুন। আসলে বর্তমানে বাংলাদেশসহ বিশ্বের সবখানেই জিহাদ ফরয। কিন্তু জিহাদ একটি ইজতেমায়ি কাজ। ব্যক্তিকেন্দ্রিক প্রচেষ্টায় এক্ষেত্রে তেমন সফলতা আসে না। তাই জিহাদের ফরিযা যথাযথ আঞ্জাম দেয়ার জন্য জামাতবদ্ধ হওয়ার বিকল্প নেই। বাংলাদেশে যদিও কিতাল শুরু হয়নি, কিন্তু হকপন্থী কাফেলার মাধ্যমে জিহাদের কার্যক্রম আলহামদুলিল্লাহ অনেক দিন যাবতই চলে আসছে। একজন মুসলিমের কর্তব্য, হক জামাতের সাথে যুক্ত হয়ে শরীয়াহ ও সমর বিশেষজ্ঞদের নির্দেশনা অনুযায়ী জিহাদের কাজ করা। তারা যদি কোনো রণাঙ্গনে যাওয়া আপনার জন্য সঙ্গত ও সম্ভব মনে করেন, তখনই তাদের তত্ত্বাবধানে আপনার পক্ষে হিজরত করা ঠিক হবে। আপনার ফরয আদায় ও শাহাদাহ লাভের এটিই সর্বোত্তম পন্থা। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন,

مَنْ سَأَلَ اللَّهَ الشَّهَادَةَ بِصِدْقٍ بَلَّغَهُ اللَّهُ مَنَازِلَ الشُّهَدَاءِ وَإِنْ مَاتَ عَلَى فِرَاشِهِ. -صحيح مسلم للنيسابوري (6/ 48)، رقم الحديث: 5039

“যে ব্যক্তি দিল থেকে আল্লাহর কাছে শাহাদাহ চাইবে, নিজ বিছানায় মারা গেলেও আল্লাহ তাআলা তাকে শহীদদের মর্যাদায় উত্তীর্ণ করবেন।” -সহীহ মুসলিম: ৫০৩৯

তাছাড়া ব্যক্তিগত প্রচেষ্টায় হিজরত করে কোনো রণাঙ্গনে শরিক হওয়ার মতো নিরাপদ কোনো ব্যবস্থা বর্তমানে আছে বলে আমাদের জানা নেই। বরং তা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। যেকোনো সময় যেকোনো স্তরে গ্রেফতার হওয়ার; বিশেষ করে প্রতারিত হওয়ার আশঙ্কা এক্ষেত্রে অনেক বেশি। অধিকন্তু নির্ভরযোগ্য কোনো সূত্র ছাড়া কোনো রণাঙ্গনে উপস্থিত হতে পারলেও; মিথ্যা ও প্রতারণার এ যুগে মুজাহিদদের জন্য আপনার মতো একজন অপরিচিত মানুষকে গ্রহণ করার কোনো সুযোগ থাকে না।

আরও দেখুন: ফতোয়া নং ১১৫, বৃদ্ধ মা-বাবা ও স্ত্রী-সন্তান রেখে অন্যত্র হিজরত করার কী হুকুম?

 

فقط، والله تعالى أعلم بالصواب.

আবু মুহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আলমাহদি (উফিয়া আনহু)

০৬-০৭-১৪৪৩ হি.

০৮-০২-২০২২ ঈ.