ফাতওয়া  নং  ১৬৩

জুলুম থেকে বাঁচার জন্য ঘুষ প্রদান করার হুকুম কী? -মুফতি আবু ‍মুহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আলমাহদি (হাফিযাহুল্লাহ)

জুলুম থেকে বাঁচার জন্য ঘুষ প্রদান করার হুকুম কী? -মুফতি আবু ‍মুহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আলমাহদি (হাফিযাহুল্লাহ)

পিডিএফ ডাউলোড করুন

ওয়ার্ড ডাউনলোড করুন

 

 

জুলুম থেকে বাঁচার জন্য ঘুষ প্রদান করার হুকুম কী? 

 

প্রশ্ন:

ধর্মীয় কোন প্রতিষ্ঠান যদি তাগুত সরকারের জুলুম থেকে নিষ্কৃতি পাওয়ার লক্ষ্যে ঘুষ প্রদান করে তাহলে তা কি জায়েয হবে?

প্রশ্নকারী- আফিফ আল আদনান

 

উত্তর:

بسم الله الرحمن الرحيم

حامدا ومصليا ومسلما

ঘুষ দেয়া নেয়া উভয়ই হারাম এবং লানতযোগ্য অপরাধ। হাদিসে দাতা গ্রহীতা উভয়ের উপর লানত করা হয়েছে।

عن عبد الله بن عمرو، قال: لعن رسول الله – صلى الله عليه وسلم – الراشي والمرتشي”. – سنن الترمذي 1337 قال الإمام الترمذي رحمه الله: هذا حديث حسن صحيح. سنن أبي داود 3580، سنن ابن ماجة 2313، قال المحقق شعيب الأرنؤوط رحمه الله: إسناده قوي.

“আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাদিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ঘুষদাতা ও গ্রহীতা উভয়কেই লানত করেছেন।” –সুনানে তিরমিযি: ১৩৩৭, সুনানে আবু দাউদ: ৩৫৮০, সুনানে ইবনে মাজাহ: ২৩১৩

অবশ্য জুলুম থেকে বাঁচার জন্য বা নিজের প্রাপ্য অধিকার আদায়ের জন্য একান্ত বাধ্য হলে ঘুষ দেয়ার অবকাশ আছে। এতে ঘুষদাতা গুনাহগার হবে না; ঘুষ গ্রহীতা সর্বাবস্থায় গুনাহগার হবে। দেখুন, মাআলিমুস সুনান-খাত্তাবি: ৪/১৬১, আলমুহাল্লা: ৮/১১৮

সুতরাং কোন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ঘুষ না দিলে যদি বাস্তবেই তাগুত সরকারের জুলুমের শিকার হয়, তাহলে তাদের জন্য ঘুষ দেয়া নাজায়েজ হবে না।

বিভিন্ন আসার ও হাদিসের আলোকে ইমাম আবু বকর জাসসাস রহ. (৩৭০ হি.) বলেন,

ووجه آخر من الرشوة، وهو الذي يرشو السلطان لدفع ظلمه عنه، فهذه الرشوة محرمة على آخذها غير محظورة على معطيها … فهذا الذي رخص فيه السلف إنما هو في دفع الظلم عن نفسه بما يدفعه إلى من يريد ظلمه أو انتهاك عرضه. –أحكام القرآن 2\541-542، دار الكتب العلمية

ঘুষ প্রদানের আরেকটি বৈধ ক্ষেত্র হল, জুলুম থেকে বাঁচার জন্য শাসককে ঘুষ দেয়া। এ ধরনের ঘুষ; গ্রহণকারীর জন্য নেয়া হারাম, প্রদানকারীর জন্য নিষিদ্ধ নয়। … সালাফে সালিহিন জুলুম থেকে বাঁচার জন্য ঘুষ দেয়ার এ ক্ষেত্রটি জায়েয বলেছেন, যখন কেউ তার ওপর জুলুম করতে চাচ্ছে বা সম্ভ্রমহানি করতে চাচ্ছে। –আহকামুল কুরআন: ২/৫৪১-৫৪২

ফাতাওয়ায়ে শামীতে এসেছে,

دفع المال للسلطان الجائر لدفع الظلم عن  نفسه وماله ولاستخراج حق له ليس برشوة يعني في حق الدافع اهـ  – رد المحتار: 6/423

“জালিম শাসকের জুলুম হতে নিজ জান-মাল বাঁচানোর জন্য এবং নিজ অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে জালিম শাসককে সম্পদ প্রদান করা দাতার জন্য ঘুষ বলে গণ্য হবে না।” –ফাতাওয়া শামী: ৬/৪২৩

فقط، والله تعالى أعلم بالصواب

আবু মুহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আলমাহদি (উফিয়া আনহু)

১০-০৮-১৪৪২ হি.

২৪-০৩-২০২১ ইং