ফাতওয়া  নং  ১৭১

বর্তমানে বাংলাদেশ কি দারুল হরব? না, দারুল ইসলাম? -মুফতি আবু ‍মুহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আলমাহদি (হাফিযাহুল্লাহ)

বর্তমানে বাংলাদেশ কি দারুল হরব? না, দারুল ইসলাম? -মুফতি আবু ‍মুহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আলমাহদি (হাফিযাহুল্লাহ)

পিডিএফ ডাউলোড করুন

ওয়ার্ড ডাউনলোড করুন

 

বর্তমানে বাংলাদেশ কি দারুল হরব? না, দারুল ইসলাম?

 

প্রশ্ন:-১

বর্তমানে বাংলাদেশ কি দারুল হরব? না, দারুল ইসলাম? বর্তমানে প্রায়ই দেখা যাচ্ছে, আওয়ামী সন্ত্রাসীরা মাদ্রাসা বন্ধ করে দিচ্ছে। মসজিদ বন্ধ করে দিচ্ছে। দ্বীনি মাহফিল বন্ধ করে দিচ্ছে। সামান্য ইউপি মেম্বার পর্যন্তু বলে উঠে, মাহফিল বন্ধ, মসজিদ বন্ধ। তখন তার সামনে কথা বলার কারো হিম্মত থাকে না।

প্রশ্নকারী- মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ

 

প্রশ্ন:-২

বর্তমান প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশ কি দারুল হারব হয়ে গেছে? না, এখনও দারুল ইসলাম আছে? বিষয়টি স্পষ্ট করলে ভালো হত। অনেকের কাছেই বিষয়টি খুবই বিতর্কিত।

প্রশ্নকারী- আবু সাইদ

 

উত্তর:

بسم الله الرحمن الرحيم

মাদরাসা মসজিদ ও ধর্মীয় মাহফিল বন্ধ করে দেয়া, অনেক বড় অন্যায় ও শরিয়ত বিরোধী কাজ এবং ক্ষেত্রবিশেষে কুফরিও। তবে এগুলো দারুল ইসলাম ও দারুল হারব হওয়ার ভিত্তি নয়। এগুলো দারুল হারব হওয়ার কিঞ্চিত ফলাফল ও পরিণতি মাত্র। বাংলাদেশ দারুল হারব বলেই বাংলাদেশে এগুলো সম্ভব হচ্ছে।

দারুল হারব ও দারুল ইসলামের ভিত্তি হল, সে দেশে প্রচলিত আইন এবং শাসকের ধর্ম। দারুল ইসলাম এমন ভূখণ্ডকে বলা হয়, যা ইসলামি আইন মোতাবেক পরিচালিত হয় এবং যার শাসক মুসলিম। পক্ষান্তরে দারুল হারব বলা হয় এমন ভূখণ্ডকে, যা মানবরচিত কুফরি আইনে পরিচালিত এবং যার শাসক কাফের বা মুরতাদ।

সুতরাং বাংলাদেশ যে দারুল হারব, তাতে বিন্দুমাত্র সংশয়ের সুযোগ নেই। কারণ বাংলাদেশ শতভাগ মানবরচিত কুফরি আইনে পরিচালিত এবং বাংলাদেশের শাসকও মুরতাদ।

 

দেখুন ইমাম জাসসাস রহ. কৃত শরহে মুখতাসারুত তাহাবী: ৭/২১৫-২১৮, মাবসুতে সারাখসী: ১০/১১৩-১১৪, বাদায়িউস সানায়ি: ৭/১৩০-১৩১

 

উল্লেখ্য, অনেকে মনে করে দারুল হারব মানেই সেখানকার বাসিন্দারা ঢালাওভাবে কাফের। সেখানকার শাসকদের, শাসক দলের বা অমুসলিমদের যে কাউকে হত্যা করা যায়, যে কারো সম্পদ ছিনতাই করা যায় ইত্যাদি। এমন চিন্তা মারাত্মক বিভ্রান্তি। এসব বিধানে অবশ্যই ব্যক্তিতে ব্যক্তিতে পার্থক্য আছে। কার কী বিধান, কার সঙ্গে কী আচরণ বৈধ, তা না জেনে কোনো পদক্ষেপ নেয়া শরিয়ত সম্মত নয়। আর যে কোনো জিহাদি কার্যক্রম যে সমরবিশেষজ্ঞ ওমারা ও ওলামাদের নির্দেশনায় করতে হবে, তা তো বলাই বাহুল্য। অন্যথায় তা মুসলিমদের উপকার অপেক্ষা ক্ষতির কারণ হতে পারে, যা কোনো বিবেকবানই সমর্থন করবে না।

আল্লাহ তাওফিক দিলে আমরা দারুল ইসলাম ও দারুল হারবের সংজ্ঞা ও পরিচয় নিয়ে বিস্তারিত ও প্রামাণ্য একটি ফতোয়া প্রকাশ করব ইনশাআল্লাহ। আপাতত সংক্ষেপে মূল পরিচয়টা বলে দেয়া হল।

فقط، والله تعالى أعلم بالصواب

আবু মুহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আলমাহদি (উফিয়া আনহু)

২রা শাওয়াল ১৪৪২ হি.

১৫ ই মে ২০২১ ইং