ফাতওয়া  নং  ২৫৩

আমদানি শুল্ক ফাঁকি দেয়ার উদ্দেশ্যে পণ্যের দাম ও ওজন কম দেখানো কি বৈধ হবে?

আমদানি শুল্ক ফাঁকি দেয়ার উদ্দেশ্যে পণ্যের দাম ও ওজন কম দেখানো কি বৈধ হবে?

পিডিএফ ডাউনলোড করুন

ওয়ার্ড ডাউনলোড করুন

আমদানি শুল্ক ফাঁকি দেয়ার উদ্দেশ্যে পণ্যের দাম ও ওজন কম দেখানো কি বৈধ হবে?

 

প্রশ্ন:

বিদেশ থেকে পণ্য আমদানির সময় বন্দরগুলোতে আমদানি শুল্ক ও ইনকাম ট্যাক্স দিতে হয়। এই শুল্ক ফাঁকি দেয়ার জন্য কিংবা কম দেয়ার জন্য আমি যদি পণ্য ক্রয় চুক্তিতে দাম ও ওজন কম দেখাই, তাহলে তা কি বৈধ হবে?

প্রশ্নকারী- আব্দুল্লাহ

 

উত্তর:

বিসমিল্লাহির রহমানির রাহিম

প্রচলিত ট্যাক্সব্যবস্থা সম্পূর্ণ জুলুম ও অন্যায় এবং তা বহুলাংশে ইসলাম ও মুসলিমদের বিরুদ্ধে ব্যবহৃত হয়। তা ফাঁকি দেয়া শুধু বৈধই নয়, বরং ফাঁকি দেয়া সম্ভব হলে তা জরুরি। এ উদ্দেশ্যে পণ্যের দাম বা ওজন কম দেখানো অথবা অন্য কোনো কৌশলের আশ্রয় নেয়া জায়েয। সম্পূর্ণ ট্যাক্স থেকে বাঁচা সম্ভব না হলে, আংশিক থেকে বাঁচার সুযোগ থাকলে, সেটার চেষ্টা করা জরুরি।

বিস্তারিত জানতে সাইটে প্রকাশিত নিম্নোক্ত ফতোয়াগুলো দেখুন:

১. বর্তমান তাগুত সরকারকে ট্যাক্স দেয়া কি জায়েজ হবে?

২. ঘুষ দিয়ে সরকারি ট্যাক্সের পরিমাণ কমানো কি বৈধ হবে?

৩. কাস্টমস ট্যাক্স ফাঁকি দিয়ে অন্য দেশ থেকে স্বর্ণ নিয়ে আসার হুকুম কি?

 

فقط، والله تعالى أعلم بالصواب

আবু মুহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আলমাহদি (উফিয়া আনহু)

০৫-১০-১৪৪৩ হি.

০৭-০৫-২০২২ ঈ.